ঢামেকের করোনা ইউনিটে ২৪ ঘন্টায় ১৯জনের মৃ’ত্যু

গত ২৪ঘন্টায় শনিবার বিকেল পর্যন্ত ঢামেকের করোনা ইউনিটে ১৯জন মৃ’ত্যুবরন করেছেন। এদের মধ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৪জনের মৃ’ত্যু হয়েছে। ৪জন মহিলাসহ অন্যান্যরা করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃ’ত্যুবরন করেছেন। গত ২মে থেকে করোনা ইউনিটে শনিবার বিকাল সাড়ে ৫ টা পর্যন্ত ২২দিনে মোট নারী ও পুরুষ মিলে ২৩৭জনের মৃ’ত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৪৮জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান এবং অন্যরা করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছেন, করোনা ইউনিটে কোভিড-১৯ পজিটিভ রোগী ছাড়া উপসর্গ আছে এমন রোগী, নিউরো সার্জারি, অর্থোপেডিক্স, শিশু বিভাগের রোগীরাও চিকিৎসা পাচ্ছেন। এমনকি করোনা আক্রান্ত অন্তঃসত্ত্বা নারীদের চিকিৎসা দেয়া হয়। তাই অনেক সাধারণ রোগী আছে বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে শেষ মুহুর্তে ঢামেকে আসেন। যখন আসে তখন চিকিৎসকদের আর কিছু করার থাকে না।

এদিকে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এমন দাবি করলেও করোনা ইউনিটে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী, রোগীর স্বজন, মৃ’ত রোগীর স্বজনরা ভিন্ন অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। এখানে আসা গুরুত্বর অসুস্থ অনেক রোগী সময়মতো সেবা পাননা বলেও কেউ কেউ অভিযোগ করেছেন।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের হেমাটোলজি বিভাগের প্রধান ও প্লাজমা থেরাপির জন্য গঠিত কমিটির প্রধান অধ্যাপক ডা. এম এ খান বলেন, যারা প্লাজমা দিচ্ছেন তাদের ভয়ের কোনও কারণ নেই, তারা নিরাপদ থাকবেন। কোনও ধরনের রি-ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা নেই। কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে যারা সুস্থ হয়েছেন তাদের প্রতি অনুরোধ, আপনার দেয়া প্লাজমাতে সুস্থ হতে পারেন আরেকজন মানুষ। তাই সবাইকে এগিয়ে আসতে অনুরোধ করছি।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *