কুষ্টিয়ায় বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙচুর, আ’লীগ নেতাসহ ৩ জন আটক

কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার রেশ কাটতে না কাটতেই কুমারখালীতে বাঘা যতীনের ভাস্কর্যের নাক ও মুখের কিছু অংশ ভেঙেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার কুমারখালীর কয়া ইউনিয়নে কয়া কলেজের সামনে নির্মিত ভাস্কর্যটি ভাঙার ঘটনায় পুলিশ দোষীদের খুঁজে বের করতে ইতোমধ্যে অভিযান শুরু করেছে। ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনায় প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কয়া কলেজের সভাপতি ও তাতীলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি অ্যাডভকেট নিজামুল হক চুন্নু, প্রিন্সিপ্যাল হারুন-আর রশিদ, নাইট গার্ড খলিলুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় ছিলেন, একজন বাঙালি ব্রিটিশ বিরোধী বিপ্লবী নেতা। তিনি ‘বাঘা যতীন’ নামে সকলের কাছে সমধিক পরিচিত। ভারতে ব্রিটিশ বিরোধী সশস্ত্র আন্দোলনে তিনি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করেছিলেন।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের আগে কলকাতায় জার্মান যুবরাজের সাথে ব্যক্তিগতভাবে সাক্ষাৎ করে তিনি জার্মানি থেকে অস্ত্র ও রসদের প্রতিশ্রুতি অর্জন করেছিলেন। তার জন্ম ১৮৭৯ সালে কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী থানায়। মাত্র ৩৫ বছর বয়সে ১৯১৫ সালে তিনি মারা যান। বাংলাদেশে ভারতীয় দুতাবাসের দেয়া তার ভাস্কর্যটি কয়া কলেজের সম্মূখে স্থাপন করা হয়েছিল।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কুমারখালী থানার ওসি মজিবুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। রহস্য উদঘাটনের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৪ ডিসেম্বর দিবাগত রাতের কোনো এক সময় কুষ্টিয়া শহরের পাঁচ রাস্তার মোড়ে পৌরসভার উদ্যোগে প্রায় ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের মুখ ও হাতের অংশ ভাঙচুর করে দুর্বৃত্তরা। পরে অভিযান চালিয়ে ৫ ডিসেম্বর রাতে প্রথমে এক মাদরাসার দুই শিক্ষক এবং পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে রোববার ভোরে দুই ছাত্রকে গ্রেফতার করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *